Melbondhon
এখানে আপনার নাম এবং ইমেলএড্রেস দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করুন অথবা নাম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন
widgeo

http://melbondhon.yours.tv
CLOCK
Time in Kolkata:

হাদিসের ইতিহাস অনুসন্দ্বান-১

Go down

হাদিসের ইতিহাস অনুসন্দ্বান-১ Empty হাদিসের ইতিহাস অনুসন্দ্বান-১

Post by mahdi briged on 2011-06-30, 07:29











মুলঃআল্লামা
সাইয়েদ মুরতাজা আসকারী(রঃ),অনুবাদঃমুঃ মতিউর রহমান

প্রথম খন্ড
সমস্ত মানুষ
ছিল একই উম্মত।অতঃপর আল্লাহ নবীগনকে সুসংবাদদাতা সতর্ককারীরুপে প্রেরন করেন।মানুষেরা যে বিষয়ে মতবিরোধ করতো তাদের মধ্যে সে বিষয়ে মীমাংসার জন্য তিনি তাদের সহিত সত্যসহ কিতাব অবতীর্ন করেন এবং যাহাদিগকে তাহা দেয়া হয়েছিল,স্পষ্ট নিদর্শন তাদের নিকট আসবার পরে,তারা শুধু পরস্পর বিদ্বেষবশত সেই বিষয়ে ভিন্নমত পোষন করতো,আল্লাহ তাদেরকে সে বিষয়ে নিজ অনুগ্রহে সত্য পথে পরিচালিত করেন।আল্লাহ যাকে ইচ্ছা সহজ-সরল পথে পরিচালিত করেন(সুরা বাকারাঃ২১৩)

তোমরা কি
আশা এই কর যে,ইহুদীরা তোমাদের কথায় ইমান আনবে?যখন তাদের একদল আল্লাহর বানী শ্রবন করে,অতঃপর তারা উহা বিকৃ্ত করে,অথচ তারা তা জানে সুরা বাকারাঃ৭৫
সুতরাং দুর্ভোগ
তাদের জন্য যারা নিজ হাতে কিতাব রচনা করে এবং তুচ্ছ মুল্যপ্রাপ্তির জন্য বলে,”ইহা আল্লাহর নিকট হতেতাদের হাত যা রচনা করেছে তার জন্য শাস্তি তাদের এবং যা তারা উপার্জন করে তার জন্য শাস্তি তাদের(সুরা বাকারাঃ৭৯)

ঐশী ধর্ম কেন সনাতন করা হয়?
মানব জাতির অতীত ইতিহাস পর্যালোচনা করলে দেখা যায় যে,মানুষের সাধারন রীতি-প্রবনতা হলো,তারা প্রত্যেক নবীর শিক্ষাকে নাটকীয়ভাবে রদ-বদল করেছে,এমনকি তাদের ঐশীগ্রন্থেও নতুন কিছু সংযোজন করেছে বা তাতে পরিবর্তন এনেছে।আল্লাহ পরবর্তী সময়ে তাঁর নির্ভেজাল বিধানাবলীসহ অন্য একজন নবী প্রেরন করেছেন,এবং এইভাবে তিনি তাঁর প্রেরিত ঐশী ধর্মকে সনাতনরুপে উপস্থাপন করেছেন।

এই ঐশীবিধান প্রেরনের বিষয়টি অবশেষে রাসুল(সাঃ)এর আবিরভাবের পর শেষ হয়,এবং পুরনতা প্রাপ্তি ঘটে।এই পরযায়ে আল্লাহ আগের সকল ঐশী ধরমীয় বিধি-বিধানের বিপরীতে ইসলামের ধর্মীয় বিধি-বিধানকে চুড়ান্ত হিসাবে ঘোষনা করেছেন।আর এই কারনে যে কোন ধরনের পরিবর্তন বা বিচ্যুতির হাত হতে ইসলামের এই ঐশীগ্রন্থ আল-কুরানকে নিরাপত্তা প্রদান সংরক্ষনের দায়-দায়িত্ব তিনি নিজের হাতে রেখেছেনঃআমিই কুরান অবতীর্ন করেছি এবং অবশ্য আমিই উহার সংরক্ষক”(সুরা হিজরঃ৯)

ইসলামী উম্মাহের মধ্যে মতভেদের কারন

নামায,যাকাত,হজ্ব এবং মানুষের প্রায়শই প্রয়োজনীয় অন্যান্য এবাদাত বা পারস্পরিক লেন-দেন সম্পর্কিত ইসলামের এইসব ধর্মীয় ঐশী বিধানাবলীর মৌ্লিক এবং বুনিয়াদী নীতি-নির্দেশ আল-কুরানের নির্ভুল সুনির্দিষ্টভাবে বর্নিত হয়েছে।রাসুলে(সাঃ) কুরানে বর্নিত ঐসব ঐশী বিধানের ব্যাখ্যা এবং বিশদ বর্ণনা উপস্থাপন করেছেন।তিনি নামায কত রাকাত এবং নামাযে কি কি পড়তে হবে,কিভাবে পড়তে হবে তা নির্দিষ্ট করেছেন;সম্পদের যাকাত কি পরিমানে দিতে হবে এবং যাকাত কি পরিমান দিতে হবে এবং হজ্ব সম্পাদনের জন্য কি কি আহকাম পালন করতে হবে তা তিনি নির্দিষ্ট করেছেন।ধর্মীয় অন্যান্য আহকামের বিষয় নিরধারনও রাসুলের(সাঃ) কার্যের আওতাভুক্ত ছিল।

ফলাফল দাড়ালো এই যে, যদিও ঐশী বিধানাবলীর সকল নীতি-নির্দেশ কুরানে বরনিত আছে,তথাপি সেগুলোর বিশদ বর্ণনা এবং ব্যাখ্যা দিয়েছেন রাসুল(সাঃ) যা হাদিস নামে পরিচিত, এবং উহা অনুসরন করার জন্য আল্লাহ নিজেই নির্দেশ প্রদান করেছেন-বলেছেনঃরাসুল তোমাদিগকে যা দেয় তা গ্রহন কর এবং যা হতে তোমাদিগকে নিষেধ করে তা হতে তোমরা বিরত থাক”(আল-কুরান,সুরা হাশরঃ৭)

কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক বিষয় হলো,কিছু কিছু মানুষ এমনকি রাসুলের(সাঃ) জীবদ্দশাতেই তাঁর প্রতি মিথ্যারোপ করে।রাসুলের(সাঃ) নামে তারা মিথ্যা হাদিস তৈ্রী করতে থাকে।নাহজুল বালাগায় ২৩ বছরের কুরান লেখক,হাফিজ--কুরান ইমাম আলী(আঃ) একটি খুতবায় বিষয়টি সুস্পষ্ট করেন।তিনি বলেনঃরাসুল(সাঃ)এর জীবদ্দশায় কিছু লোক মিথ্যা হাদিস তৈ্রী করে তাঁর নামে প্রচার করছিল।(এই অনিষ্ট জানতে পেরে) একদা তিনি(রাসুল সাঃ) তাঁর আসন থেকে উঠে দাঁড়ান এবং উপস্থিত লোকজনকে উদ্দেশ্য করে বলেনঃযে ব্যক্তি আমার নামে কোন মিথ্যা বিষয় প্রচার করে সে নিজের জন্য জাহান্নামে স্থায়ী আবাস তৈ্রী”(সুত্রঃনাহজুল বালাগা,খুতবা ২০১;বুখারী শরিফ-অধ্যায়ইল্ম’,নবীজীর প্রতি মিথ্যারোপকারী ব্যাক্তির গুনাহ;অবনে হাজার আসকালানী(ফাতিহুল বারী),সহী বুখারীর টীকা,খন্ড১,পৃঃ২০৯।
গোলযোগ সৃষ্টিকারী লোকজন নবীজীর ওফাতের পরও জাল হাদিস তৈ্রী করার অপকর্মটি অব্যাহত রাখে।এভাবে ইসলামের বিধিবিধান নানাবিধ বিচ্যুতি দ্বারা আক্রান্ত হয়,এবং মুসলমানদের মাঝে মতদ্বৈধতা দেখা দেয়।যেহেতু পবিত্র কুরানের যেকোন ধরনের পরিবর্তন বা বিচ্যুতি হতে এর হেফাজত সংরক্ষনের ব্যাপারে আল্লাহ নিজেই নিশ্চয়তা দিয়েছেন, কাজেই এইসব অনিষ্টকারক লোকেরা তাদের কলুষিত হস্ত প্রসারিত করে পবিত্র কুরানের উদ্দেশ্য তাৎপর্য ব্যাখ্যাকারক এবং বিশদ-অর্থ প্রকাশক রাসুল(সাঃ)এর হাদিসের দিকে।এই লোকেরা বিভিন্ন বিষয়ের উপর বানোয়াট হাদীস তৈ্রী করতে থাকে এবং রাসুলের(সাঃ) নামে প্রচার করতে থাকে।এই কারনে আমরা দেখতে পাই, কত ব্যাপক পরিমানে বিরোধ মতদ্বৈধতা মুসলিম সমাজে সহজ অবস্থান করে নিয়েছে।এর পরিমান এতই বেশী যে,এমনকি আকিদা-বিশ্বাসের শাখা প্রশাখার মতো মৌ্লিক বিষয়েও গুরুতর মতবিরোধ দেখা দিয়েছে।
এই লোকদের অবস্থা এমন পর্যায়ে উপনীত হয় যে,তারা আল্লাহর গুনাবলীর বিষয়েও প্রশ্ন/তর্কের অবতারনা করেছিল।তাদের প্রশ্ন ছিলঃআল্লাহর হাত-পা আছে কি-নাঅথবাহাশরের ময়দানে তাঁকে দেখা যাবে কি না?দেখা গেলে,কিভাবে দেখা যাবে”?(সুত্রঃইবনে খুজায়মাহ(তাওহীদ)মাক্তাবাহ আল কুলত্নীয়াত আল-আজারিয়াহ,মিশর(হিজরী ১৩৮৭)তারা আল-কুরানের ব্যাপারেও বিভিন্ন অভিমত প্রকাশ করতে থাকে এবং বিভিন্ন প্রশ্ন উথাপন করতে থাকে,যেমন, “আল-কুরান কি আল্লাহর সৃষ্টি,এবং ইহা কি অপরিবর্তনশীল কিছু নয়?নাকি ইহা আদি চিরন্তন?










এইসব লোকেরা নবীগনের(আঃ) অবস্থান এবং সত্বার ব্যাপারেও প্রশ্নের অবতারনা করেছিল।তারা জিজ্ঞেস করতোঃনবীগন(আঃ) কি মাসুম(নিষ্পাপ)?”তাদের বিশ্বাস হলোঃশুধুমাত্র ওহী প্রচার সংক্রান্ত ক্ষেত্রে নবীগন মাসুম,কিন্তু অন্যান্য ক্ষেত্রে তাদের গুনাহ করার অবকাশ আছে।অধিকন্তু,তারা রাসুলের(সাঃ) উপর ১ম ওহী নাজিলের বিষয়েও ভিন্ন ভিন্ন ধারনা পোষন করতো।তারা বলতোঃ১ম ওহী নাজিলের সময় রাসুল(সাঃ) কি জীব্রাইল(আঃ)কে শয়তান মনে করেছিলেন,যিনি তাঁর সাথে ঠাট্টা-কৌ্তুক করতে চেয়েছিলেন”? অথবা,”নবীজী জানতেন যে,তিনি পবিত্র সত্বা এবং আল-কুরান নাজিল হচ্ছে তাঁর অন্তরে চেতনা সঞ্চার করছে?”(সুত্রঃশিয়া-সুন্নী উভয় মাযহাব লিখিতওহীর সুচনাসম্পর্কিত আলোচনা)
ইসলামের সম্পুরক বিধি-বিধানের ব্যাপারেও তাদের অভনত ছিল ভ্রান্ত;উদাহরন হলোঃওজুর ক্ষেত্রে কোন লোক কি তার পা মাসেহ করবে, নাকি ধুয়ে পরিস্কার করবে;অথবা নামাজ আদায়ের শুরুতে কোন লোক যখন সুরা ফাতেহা তেলাওয়াত করবে,তখন বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিমদিয়ে শুরু করবে নাকিবিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিমছাড়া শুরু করবে;অথবা হজ্ব সম্পাদনকালে তাওয়াফুন্নেসা(২য় তাওয়াফ)বাধ্যতামুলক, বা বাধ্যতামুলক নয়?”(সুত্রঃসাইয়েদ আব্দ আল হোসাইন শরফুদ্দিন আমলী(মাসাইল আল ফিত হিয়াহ) নাজম আল দীন আসকারী(আল-ওজু)
......চলবে।

mahdi briged
আমি নতুন
আমি নতুন

পোষ্ট : 12
রেপুটেশন : 0
নিবন্ধন তারিখ : 15/04/2011

Back to top Go down

Back to top


 
Permissions in this forum:
You cannot reply to topics in this forum