Melbondhon
এখানে আপনার নাম এবং ইমেলএড্রেস দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করুন অথবা নাম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন
widgeo

http://melbondhon.yours.tv
CLOCK
Time in Kolkata:

জঙ্গে জামালের যুধ্ব -৪

Go down

জঙ্গে জামালের যুধ্ব -৪  Empty জঙ্গে জামালের যুধ্ব -৪

Post by imam1979 on 2011-09-10, 07:48













বছরায় ইমামের(আঃ)ভাষনঃ


ইমাম আলী(আঃ) আব্দুল্লাহর ঘর থেকে বের হয়ে শহরের কেন্দ্র স্থলের দিকে এগিয়ে
গেলেন।বছরার জনগন বিভিন্ন রকমের পতাকা হাতে নিয়ে ইমামের(আঃ) অনুকুলে নতুন
করে বাইয়াত হয়।এমনকি যুদ্বাহতরা এবং যাদেরকে কোন না কোন ভাবে নিরাপত্তা
প্রদান করা হয়েছিল তারাও আবার ইমামের(আঃ) অনুকুলে বায়াত হয়(তারিখে
ত্বাবারী,৩য় খন্ড,পৃঃ৫৪৫)।
ইমামের(আঃ) দরকার ছিল বছরার জনগনকে তাদের কৃ্তকমের জঘন্যতা ও গুরুতর অপরাধ
সম্পকে অবগত করা।একারনে,একদিকে যখন একটি মহিমা আর জ্যোতি্রময় বলয় তাঁর
চারপাশে বিরাজ করছিল,আর বছরার জনগনও কান পেতে অধীর আগ্রহে তাঁর ভাষন শোনার
জন্য অপেক্ষা করছিল।তখন তিনি এভাবে স্বীয় ভাষন শুরু করলেন ঃ
“তোমরা ছিলে ঐ মহিলার সেনাদল আর ঐ উষ্ট্রীর অনুসারী।তোমাদেরকে যখন আহবান
করলো তখন তোমরা সাড়া দিলে,আর যখন ধরাশয়ী হলো তোমরাও পলায়ন করলে। তোমাদের
চরিত্র হীন,তোমাদের অঙ্গীকার অবাধ্যতা,তোমাদের দ্বীন হলো শঠতা।আর তোমাদের
পানি লবনাক্ত।যে ব্যাক্তি তোমাদের শহরে আবাস বেছে নেবে,সে তোমাদের
পাপসমুহের ফাঁদে আক্রান্ত হবে।আর যে ব্যক্তি তোমাদের থেকে দূরে সরে যাবে সে
আল্লাহর করুনা লাভ করবে।আমি যেন দেখতে পাচ্ছি,আল্লাহর আযাব আসমান ও যমীন
থেকে তোমাদের ওপর নেমে আসছে।আর আমার ধারনা,তোমরা সকলে ডুবে গেছো,শুধু
তোমাদের মসজিদের চুড়া জাহাজের মাস্তুলের ন্যায় পানির ওপরে দৃশ্যমান
রয়েছে”।(নাহজুল বালাগাহ,খোতবা নংঃ১৩০)।
তিনি আরো বলেনঃ
“তোমাদের ভুখন্ড পানি থেকে নিকটবতী আর আকাশ থেকে দুরবতী।তোমাদের বুদ্বি
হালকা আর তোমাদের চিন্তা-ভাবনা বোকার মতো।তোমরা ( তোমাদের ইচ্ছাশক্তির
দুবলতার কারনে)তীরন্দাযদের লক্ষ্যবস্তুতে পরিনত হয়েছো,আর মুফতখোরদের
সুস্বাদু গ্রাসে এবং বুনো পশুদের শিকারে পরিনত হয়েছো”।(নাহাজুল
বালাগাহ,খোতবা নং ৫১৪)।
এরপর তিনি বললেনঃ” হে বছরার অধিবাসীরা,এবার বলো দেখি,আমার সম্বন্দ্বে তোমাদের কি ধারনা”?
এমন সময় একজন বলে উঠে দাড়ালো এবং বললো,”আপনার সম্পকে আমরা উত্তম ধারনা ও
কল্যান ছাড়া অন্য কিছু ধারনা করি না।আপনি যদি আমাদের শাস্তি দেন তবে তা হবে
ন্যায় সঙ্গত হবে,কারন আমরা অপরাধী।আর যদি আমাদেরকে ক্ষমা করে দেন তাহলে
আল্লাহর অধিক পসন্দনীয়”।
ইমাম আলী(আঃ) বললেন,”আমি সাধারন ক্ষমা ঘোষনা করছি।তোমরা ফিতনা সৃষ্টি করা
থেকে দূরে থাকবে।তোমরাই হলে প্রথম জনগোষ্ঠী যারা বায়াত ভেঙ্গেছ এবং
উম্মাতের লাঠিকে দু টুকরো করেছ।গুনাহ থেকে ফিরে এসো এবং নিষ্টা সাথে তওবাহ
করো”(আল-জামাল,পৃঃ২১৮)।

…………

………..

হযরত আয়েশাকে মদীনায় প্রেরন

হযরত আয়েশা রাসুলের(সাঃ) স্ত্রী হিসাবে বিশেষ সম্মানের অধিকারিনী
ছিলেন।ইমাম(আঃ) তাঁর সফরের প্রস্তুতি হিসাবে বাহন ও পাথেয় যোগাড় করলেন এবং
মুহাম্মাদ ইবনে আবুবকরকে স্বীয় বোনের সঙ্গী হবার ও তাকে মদীনায় পৌছে দেবার
আদেশ করলেন।আর তার যে সকল মদীনাবাসী সহচর মদীনায় ফিরে যেতে আগ্রহী ছিলেন
তাদেরকে মদীনা পযন্ত হযরত আয়েশার সাথে যেতে অনুমতি প্রদান করলেন।তিনি
এখানেই স্বীয় দায়িত্ব শেষ মনে করলেন না,বরং বছরার ৪০ জন ব্যক্তিত্ববান
নারীকে তার সাথে মদীনায় প্রেরন করলেন।

হিজরী ৩৬ সাল পয়লা রজব শনিবার যাত্রার দিন ধায হলো।যাত্রার সময় একদল লোক
তাকে অনুসরন করে এগিয়ে গেলো এবং বিদায় সম্বরধনা দিলো।হযরত আয়েশা ইমাম
আলীর(আঃ) ভালবাসা দেখে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন এবং জনগনকে বলেন,”হে আমার
সন্তানেরা!আল্লাহর শপথ!আমার আর আলীর মধ্যে একজন নারী আর তার স্বজনদের মধ্যে
যে ঝগড়া হয় তার চেয়ে বেশী কিছু ঘটেনি।তিনি যদিও আমার প্রতি অসন্তুষ্ট
হয়েছেন,কিন্তু মানুষ হিসাবে তিনি সৎ ও পুন্যবান”।

ইমাম(আঃ) হযরত আয়েশার বক্তব্যের জন্য ধন্যবাদ জানালেন।তিনি জনগনকে সম্বোধন
করে বললেন,”হে জনগন! তিনি হলেন নবীর(সাঃ) পত্নী”।অতপর তিনি কয়েক মাইল পথ
তাকে এগিয়ে দেন।

শেখ মুফিদ লিখেছেনঃ

ইমাম আলীর(আঃ) নিদেশে যে ৪০ জন নারীকে হযরত আয়েশার সঙ্গী হিসাবে নিধারন করা
হয়েছিল তারা সবাই বাইরে পুরুষের পোষাক পরিহিতা ছিলেন,যাতে অচেনা লোকেরা
তাদেরকে পুরুষ মনে করে এবং তাদের মনে কোন কুমতলবের উদয় না ঘটে।আয়শাও মনে
করেছিলেন,আলী(আঃ) পুরষ কমকতাদেরকেই তার হেফাজতের দায়িত্বে নিয়োজিত করেছেন
।আর অনবরত এ বিষয় নিয়ে অভিযোগ জানাচ্ছিলেন।কিন্তু যখন মদীনায় পৌছালেন এবং
দেখতে পেলেন যে এরা ছিলো আসলে পুরুষের পোষাক পরিহিতা নারী,তখন তিনি স্বীয়
অভিযোগের জন্য ক্ষমা চাইলেন এবং বললেন,”আল্লাহ আলী ইবনে আবি তালিবের(আঃ)
সম্মান রক্ষা করেছেন”।(আল-জামাল,পৃঃ২২১)।
(সমাপ্ত)

imam1979
আমি আন্তরিক
আমি আন্তরিক

পোষ্ট : 32
রেপুটেশন : 6
নিবন্ধন তারিখ : 15/07/2011

Back to top Go down

Back to top


 
Permissions in this forum:
You cannot reply to topics in this forum