Melbondhon
এখানে আপনার নাম এবং ইমেলএড্রেস দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করুন অথবা নাম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন
widgeo

http://melbondhon.yours.tv
CLOCK
Time in Kolkata:

জঙ্গে সিফফিন-১০

Go down

জঙ্গে সিফফিন-১০ Empty জঙ্গে সিফফিন-১০

Post by imam1979 on 2011-09-24, 07:12

মুয়াবিয়ার সর্বশেষ চক্রান্ত
মুয়াবিয়ার
সর্বশেষ চক্রান্ত ছিল ইমামকে(আঃ) পরীক্ষা করা যে,সত্যিই তিনি তাকে তার পদ
থেকে অপসারন করতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ কিনা।একারনে তিনি ইমামের প্রতিনধি জারীরেরঘরে
গিয়ে বললেন," আর মাথায় নতুন একটি চিন্তা এসেছে।শামের হুকুমত আমাকে দান
করার আর মিসরের রাজস্বও আমাকে দিয়ে দেবার জন্য তোমার বন্দ্বুকে (আলীকে)
লিখে পাঠাও।আর যখন তাঁর মৃত্যু হবে যখন তিনি যেন আমার ওপর কারো বায়াত না
রখে যান।তাহলেই আমি তাঁর কছে আত্নস্মর্পন করতে রাজী আছি এবং লিখিতভাবে তাঁর
হুকুমতকে স্বীকার করে নেবো "(ওয়াক্ক-এ সিফফিন,পৃঃ৫০,৫২;;নাহজুল
বালাগাঃইবনে আবিল হাদিদ,৩য় খন্ড,পৃঃ৮৪)।
ইমামের(আঃ) প্রতিনিধি তার
উত্তরে বললেন, তুমি তাঁকে পত্র লিখো;আমি তার উপর সত্যায়িত করে দেব।অবশেষে
পত্রগুলো লেখা হলো এবং পত্রবাহক দুটি পত্রই কুফায় নিয়ে গেলেন।
মুয়াবিয়ার
পত্রের বক্তব্য আরবের গোত্রগুলোর মধ্যে প্রচারিত হয়ে যায়।ওয়ালীদ বিন
উক্কবাহর ন্যায় মুয়াবিয়ার দলভুক্ত কিছু লোক তাকে এধরনের পত্র লেখার জন্য
সমালোচনা করেন।ওয়ালিদ একটি কবিতার মাধ্যমে মুয়াবিয়াকে সম্বোধন করে লিখলেনঃ"
তুমি আলী থেকে এমন কিছু চেয়েছ যা কোনদিনই পাবে না,আর যদি পাও তবুও
কয়েকদিনের বেশী তা তোমার হাতে থাকবে না "( প্রাগুক্ত)।
...........
.........
স্বীয় প্রতিনিধির প্রতি ইমামের(আঃ) উত্তর
ইমাম(আঃ) জারীরের পত্রের উত্তরে তাঁকে লিখলেনঃ
----"
মুয়াবিয়ার উদ্দেশ্য এই যে,আমি যেন তার ওপর বায়াত জনিত অধিকার প্রাপ্ত না
হই,যাতে সে যা ইচ্ছা তা-ই করতে পারে।আর তোমাকে সে নির্লিপ্ত রাখতে চায় যাতে
শামের জনগনকে যুদ্বের ব্যাপারে পরীক্ষা করতে পারে।সেই প্রথম দিনগুলোতে,যখন
আমি মদীনায় ছিলাম,মুগিরাহ ইবনে শুবাহ অভিমত ব্যাক্ত করেছিলেন যে,আমি যেন
মুয়ায়বিয়াকে তার স্বপদে বহাল রাখি।কিন্তু আমি তা মেনে নেই নি।আল্লাহ যেন
এমন দিন না আনেন যাতে আমাকে পথভ্রষ্ট লোকদের সাহায্য গ্রহন করতে হতে
পারে।যদি সে বায়াতের হাত বাড়ায় তাহলে তো কোন কথাই নেই,অন্যথায় তুমি আমার
কাছে ফিরে আসো "( ওয়াক্ক-এ সিফফিন,পৃঃ৫২;;নাহজুল বালাগাঃইবনে আবিল হাদিদ,৩য়
খন্ড,পৃঃ৮৪)।
ইমাম(আঃ) এ পত্রে মুয়াবিয়ার একটি উদ্দেশ্য তুলে ধরেন।তা
হলো, তিনি এ প্রস্তাবের মধ্যমে কালক্ষেপনের নীতি গ্রহন করছেন।আর তিনি চান
যে,এভাবে পত্র যাওয়া ও তার উত্তর আসার মধ্যবর্তী সময়ে স্বীয় যুদ্বসামর্থ্য
বৃদ্বি করবেন,আর যদি ইমামের(আঃ) উত্তর নেতিবাচক হয়(যা ছিল স্বাভাবিক) তখন
অধিকশক্তি সহকারে ইমামের বিরুদ্বে যুদ্বে অবতীর্ন হবেন।
জারীর মুয়াবিয়ার সাথে যোগসাজসের জন্য অভিযুক্ত
......চলবে।

imam1979
আমি আন্তরিক
আমি আন্তরিক

পোষ্ট : 32
রেপুটেশন : 6
নিবন্ধন তারিখ : 15/07/2011

Back to top Go down

Back to top


 
Permissions in this forum:
You cannot reply to topics in this forum